বৃহস্পতিবার  ২২শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং  |  ৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ  |  ১৪ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী

খালেদাকে পরীক্ষায় ‘গুরুতর নতুন কিছু’ পায়নি মেডিকেল বোর্ড বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা করানোর পরামর্শ

ডিএ: সরকারের গঠিত মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা কারাবন্দি খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে নতুন করে ‘গুরুতর কিছু’ পায়নি বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবদুল্লাহ আল হারুন।
তিনি বলেছেন, খালেদা জিয়া হাসপাতালে ভর্তি হতে চাইলে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলই ভালো হবে বলে চিকিৎসকরা পরামর্শ দিয়েছেন। পাঁচ সদস্যের ওই মেডিকেল বোর্ড রোববার তাদের প্রতিবেদন হস্তান্তর করার পর হাসপাতালের পরিচালক এ কথা বলেন।
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে বোর্ডের চিকিৎসকরা কী পেয়েছে জানতে চাইলে আবদুল্লাহ আল হারুন বলেন, উনারা যেটা পেয়েছেন, নতুন কোনো সিরিয়াস উপসর্গ যোগ হওয়া, এটা হয়নি।
তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার আগে থেকেই রিউম্যাটয়েডআর্থ্রাইটিস (গেঁটে বাত) রয়েছে। সে কারণে দুই হাতে ও পিঠে ব্যথা অনুভব করেন। সেজন্য তাকে ব্যবস্থাপত্র দিয়েছেন চিকিৎসকরা। ৭৩ বছর বয়সী খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে হৃদযন্ত্র, রক্তচাপ বা ডায়াবেটিসের কোনো সমস্যা পাওয়া যায়নি বলে জানান বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের পরিচালক। মেডিকেল বোর্ড উনাকে ট্রিটমেন্ট দিয়ে এসছেন। এরপরেও যদি হাসপাতালে ভর্তি হওয়া দরকার বলে তিনি মনে করেন, তাহলে মেডিকেল বোর্ড তাকে এমন একটি হাসপাতালে ভর্তি হতে বলেছেন যেখানে সব ডিসিপ্লিনের চিকিৎসা দেওয়া হয়। সেক্ষেত্রে খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে ভর্তি হওয়ার পরামর্শই দেওয়া হয়েছে বলে জানান আবদুল্লাহ আল হারুন।
জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় পাঁচ বছরের সাজার রায়ে গত ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে আছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। অসুস্থতার কারণে অন্যান্য মামলায় তিনি আদালতে হাজির হতে অনিচ্ছা প্রকাশ করেছেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ইন্টারনাল মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক আবদুল জলিল চৌধুরীর নেতৃত্বে এই বোর্ডের সদস্যরা শনিবার কারাগারে গিয়ে খালেদা জিয়াকে দেখে আসেন। বোর্ডের অন্য সদস্যরা হলেন কার্ডিওলজি বিভাগের অধ্যাপক হারিসুল হক, অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক আবু জাফর চৌধুরী, চক্ষু বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তারেক রেজা আলী ও ফিজিকেল মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক বদরুন্নেসা আহমেদ। সরকারের ‘পছন্দ অনুযায়ী প্রতিবেদন’ তৈরির পরিকল্পনা থেকে ‘অনুগত ও পছন্দের লোকদের’ দিয়ে এই মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে অভিযোগ করে বিএনপি নেতারা বলে আসছেন এই বোর্ডে তাদের নেত্রীর ‘উপযুক্ত’ ও ‘সঠিক’ চিকিৎসা হবে তারা বিশ্বাস করেন না। আগে যারা খালেদার চিকিৎসা করতেন, তাদের অন্তর্ভুক্ত করে নতুন করে মেডিকেল বোর্ড গঠনের পাশাপাশি তাকে ঢাকার ইউনাইটেড বা অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তির দাবি রয়েছে বিএনপি নেতাদের।

একটি প্রতি উত্তর ট্যাগ

আপনার ইমেল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত *

*

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com