সোমবার  ২২শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং  |  ৭ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ  |  ১৩ই সফর, ১৪৪০ হিজরী

খুলনায় ভোটের ফল যারা প্রত্যাখান করেছে মানুষ তাদেরই প্রত্যখ্যান করবে: কাদের

ডিএ: খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ফলাফল যারা প্রত্যাখ্যান করেছে, আগামি জাতীয় নির্বাচনে বাংলাদেশের মানুষ তাদের প্রত্যাখ্যান করবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। আজ বুধবার রাজধানীর মিরপুরে মনিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি মন্তব্য করেন। কাদের বলেন, বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটারদের স্বতঃস্ফূর্ত ভোটে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন তালুকদার আবদুল খালেক। সবাই বলছে একটা ভালো নির্বাচন হয়েছে। দুই-একটা বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয়েছে। শুধু একটা দল এর বিরোধিতা করছে, সেই দলটি বিএনপি। এই দলের নামই হচ্ছে মানি না, মানব না। গত মঙ্গলবার খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জুকে বিপুল ব্যবধানে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক। ২৮৯টি কেন্দ্রের মধ্যে ২৮৬টির ঘোষিত ফল অনুযায়ী, খালেকের এক লাখ ৭৪ হাজার ৮৯১ ভোটের বিরপীতে মঞ্জু পেয়েছেন এক লাখ ৯ হাজার ২৫১ ভোট। অন্তত একশ কেন্দ্রে ভোট জালিয়াতি হয়েছে অভিযোগ তুলে গত মঙ্গলবার রাতেই সেসব কেন্দ্রের ফল বাতিল করে পুনরায় নির্বাচন দেওয়ার দাবি জানান বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা মঞ্জু। আর দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী গতকাল বুধবার ঢাকায় সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার পদত্যাগ দাবি করেন। এর সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, এখন খুলনার জনগণ ভোট দিয়েছে খালেককে, তারা প্রত্যাখ্যান করেছে। প্রেস ব্রিফিং করে মিথ্যাচারের ভাঙ্গা রেকর্ড বাজানো আর বিদেশিদের কাছে নালিশ দেওয়া ছাড়া তাদের করার কিছু নাই। তিনি বলেন, আজকে খুলনা সিটি নির্বাচন যারা প্রত্যাখ্যান করেছে, আগামি জাতীয় নির্বাচনে বাংলাদেশের জনগণ তাদের প্রত্যাখ্যান করবে। জনগণের ভোট যারা প্রত্যাখ্যান করেছে, জাতীয় নির্বাচনে জনগণ তাদের প্রত্যাখ্যান করবে। দুর্নীতি মামলায় দ-িত বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া আপিল বিভাগ থেকে জামিন পাওয়ায় এ অনুষ্ঠানে সেতৃমন্ত্রী কাদেরের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন সাংবাদিকরা। জবাবে কাদের বলেন, আদালত সাজা দিয়েছে, আদালত জেলে পাঠিয়েছে, আদালতই তাকে জামিন দিয়েছে। সেখানে আমাদের বলার কিছু নাই। তবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থানের পরিবর্তন হবে না। বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থা যে ‘স্বাধীন’, আপিল বিভাগের জামিনের রায়ে তা ‘আবারও প্রমাণিত হল’ বলে দাবি করেন ক্ষমতাসীন দলের এই নেতা। মনিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি অধ্যাপক রাশেদা আক্তারের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে স্থানীয় সাংসদ কামাল আহম্মেদ মজুমদার অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

একটি প্রতি উত্তর ট্যাগ

আপনার ইমেল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত *

*

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com