সোমবার  ২৮শে মে, ২০১৮ ইং  |  ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ  |  ১৩ই রমযান, ১৪৩৯ হিজরী

পরমাণু সমঝোতা: তিন ইউরোপীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করলেন জারিফ

আন্তর্জাতিক : ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকা বেরিয়ে যাওয়ার পর বাকি দেশগুলোর করণীয় ঠিক করতে তিন ইউরোপীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ। ব্রাসেলসে মঙ্গলবার রাতে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন, জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো ম্যাস ও ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাঁ-ইভেস লা দ্রিয়াঁ’র সঙ্গে জারিফের বৈঠকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান কর্মকর্তা ফেডেরিকা মোগেরিনিও উপস্থিত ছিলেন। মোগেরিনি ২০১৫ সালে স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতায় মধ্যস্থতার ভূমিকা পালন করেছিলেন। বৈঠকে পরমাণু সমঝোতার ভবিষ্যত এবং এটি অক্ষুণœ রাখতে ইউরোপের কাছ থেকে বাস্তব গ্যারান্টি আদায়ের উপায় নিয়ে আলোচনা হয়। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ পরমাণু সমঝোতা ধরে রাখার ক্ষেত্রে এ বৈঠককে ‘শুভ সূচনা’ বলে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, শুরুটা ভালো হয়েছে। এখন আগামি কয়েক সপ্তাহের আলোচনা কোন পথে অগ্রসর হয় তার ওপর অনেক কিছু নির্ভর করছে। ব্রাসেলস বৈঠকে প্রবেশের আগে জারিফ বলেছিলেন, ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতায় তেহরানের অর্থনৈতিক স্বার্থের বিষয়গুলো সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ ছিল। এখন আমেরিকা এ সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর তিনি ইউরোপীয় দেশগুলোর কাছে জানতে চাইবেন, সেসব স্বার্থ তারা রক্ষা করতে পারবে কিনা। গত ৮ মে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আমেরিকাকে ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে বের করে নেন। অথচ ২০১৫ সালে স্বাক্ষরিত এ সমঝোতা জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে অনুমোদিত হওয়ার ফলে এটি আন্তর্জাতিক আইনে পরিণত হয়েছিল যা মেনে চলতে প্রতিটি দেশ বাধ্য। মার্কিন সরকার এ সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গেলেও ইউরোপীয় দেশগুলো এটি মেনে চলার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করে ইরানকেও এ সমঝোতা বাস্তবায়নের আহ্বান জানিয়েছে। তবে তেহরান সুস্পষ্ট ভাষায় বলেছে, তার স্বার্থ রক্ষিত না হলে অচিরেই সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে পূর্ণ মাত্রায় শান্তিপূর্ণ পরমাণু কর্মসূচি চালু করবে ইরান।

একটি প্রতি উত্তর ট্যাগ

আপনার ইমেল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত *

*

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com