মঙ্গলবার  ১৮ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং  |  ৪ঠা পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ  |  ১১ই রবিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

শৃঙ্খলা ফেরেনি সড়কে


রাজধানীর সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) সংশ্লিষ্টদের কিছু নির্দেশনা বেঁধে দিলেও তা মানছে না পরিবহন শ্রমিকরা। নির্দেশনায় গণপরিবহনকে যেভাবে চলার কথা বলা হয়েছে তার কিছুই মানা হচ্ছে না। যেখানে-সেখানে বাস থামিয়ে যাত্রী ওঠানো-নামানো হচ্ছে। বাসে বাসে বিপজ্জনক প্রতিযোগিতা চলছে।
সমপ্রতি নিরাপদ সড়কের দাবিতে ছাত্র আন্দোলনের পর পরিবহন মালিক সমিতির নেতারা ডিএমপির নির্দেশনা মানার কথা গণমাধ্যমকে জানালেও সড়কে এর প্রতিফলন ঘটেনি। রাজধানীর বিভিন্ন রুটে ঘুরে দেখা যায়, নির্দিষ্ট স্টপেজে বাস থামার কড়া নির্দেশনা থাকলেও তা কর্ণপাত না করে আগের মতোই চলছে পরিবহন। বাস থামার জন্য নির্দিষ্ট জায়গা চিহ্নিত করা থাকলেও সেখানে বাস থামায় না পরিবহন শ্রমিকরা। নির্দিষ্ট জায়গা শুরু হওয়ার অনেক আগেই বাস থামিয়ে যাত্রী ওঠানো-নামানো হচ্ছে। ফলে যাত্রীরাও বাসের জন্য নির্ধারিত স্টপেজে দাঁড়াচ্ছে না। অন্যদিকে চালকদের লাইসেন্স প্রদর্শন, দরজা লাগানোর ক্ষেত্রে দেয়া নির্দেশনা আমলেই নেয়নি গণপরিবহন শ্রমিকরা। বাদুরঝোলা হয়ে যাত্রী পরিবহনও বন্ধ হয়নি।
যাত্রীরা বলছেন, বাস চালকরা নির্ধারিত জায়গায় বাস থামায় না। চালকরা যেখানে থামায়, যাত্রীরাও সেখানে ছুটে যায়। সড়কে একদিকে গণপরিবহন সংকট। ঘন্টার পর ঘন্টা বাসের জন্য অপেক্ষা করতে হয়। ফলে বাস থামার আগেই যাত্রীরা হুড়োহুড়ি শুরু করে। এভাবে শৃঙ্খলা ফিরবে না। সবাইকে নিময় মানতে বাধ্য করতে হবে।
জানা যায়, পুলিশের পক্ষ থেকে রাজধানীতে গণপরিবহনে যাত্রী উঠা-নামা করানোর জন্য ১২১টি বাসস্ট্যান্ড নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। যেসব জায়গায় বাস থামালে যানজটের সৃষ্টি হবে না-এমন জায়গা চিহ্নিত করে এসব বাস স্টপেজ তৈরি করা হয়েছে। ডিএমপির পক্ষ থেকে এসব স্টপেজে যাত্রী ওঠা-নামা করানোর নির্দেশনা রয়েছে।
কিন্তু সেসব নির্দেশনা উপেক্ষা করে বরাবরের মতোই পরিবহন শ্রমিকরা যেখানে সেখানে ইচ্ছেমতো বাস থামিয়ে যাত্রী তুলেছে এবং নামিয়ে দিয়েছে। রাজধানীর প্রায় সব সড়কে এমন চিত্র দেখা গেছে।
একাধিক বাস চালক বলছেন, আগে থেকে যেভাবে বাস চলাচল করে আসছে, সে অনুযায়ী বাসে ওঠার জায়গাগুলো যাত্রীদের কাছে পরিচিত হয়ে গেছে। ফলে যাত্রীরা নির্ধারিত জায়গায় গিয়ে বাসের জন্য অপেক্ষা করে না। অনেক যাত্রীই নির্ধারিত স্ট্যান্ডের পরিবর্তে নিজের সুবিধা মতো জায়গা থেকে গাড়িতে উঠতে এবং নামতে চায়। এটা ঢাকার সড়কে বাস চলাচলের দৈনন্দিন অভ্যাস। ফলে অভ্যাস পরিবর্তন হতে সময় লাগবে।
মিরপুর ইউনাইটেড পরিবহনের চালক সাদ্দাম হোসেন বলেন, যাত্রীরা যেখানে দাঁড়ায়, বাস চালকরাও সেখানে বাস থামায়। কারণ যাত্রী না তুললে আমাদেরই লোকসান। তা ছাড়া, নিয়ম মানলে সবাইকে মানতে হবে। আমি একা এ নিয়ম মানলে তো হবে না, যাত্রী পাব না। সব বাস চালককে এ নিয়ম মানতে বাধ্য করতে হবে। আবার পছন্দ মতো জায়গায় নামিয়ে না দিলে কোনো কোনো যাত্রী রাগ করে। কেউ কেউ গায়েও হাত তোলে। আমাদের তো সবদিকেই সমস্যা।
ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া এন্ড পিআর) মাসুদুর রহমান জানান, রাস্তায় শৃঙ্খলা ফেরাতে বেশ কিছু বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। প্রকৃত সফলতা আসতে একটু সময় লাগবে।

একটি প্রতি উত্তর ট্যাগ

আপনার ইমেল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত *

*

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com