রবিবার  ১৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং  |  ৫ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ  |  ১২ই জমাদিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

সম্পাদকীয়

দুদকের নামে প্রতারণা অপরাধীদের আইনের আওতায় আনুন

সম্পাদকীয়: চক্রটি সক্রিয় অনেক দিন থেকেই। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন অফিসে গিয়ে দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছ থেকে বিপুল অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে তারা। আরো বড় ধরনের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের আগেই র‌্যাবের হাতে ধরা পড়েছে দুদক কর্মকর্তা পরিচয় দেওয়া এই প্রতারকচক্রের দুই সদস্য। তাদের কাজের কৌশলটিও ছিল অভিনব। সরকারি অফিসে গিয়ে দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে কোনো সময় ব্যক্তিগতভাবে যোগাযোগ করে,

বিস্তারিত »

অন্য সম্প্রদায়ের ওপর হামলা রাষ্ট্রের চরিত্র রক্ষায় সরকারের দৃঢ় ভূমিকা চাই

সম্পাদকীয়: আমাদের সংবিধানের চার মূলনীতির একটি নীতি ধর্মনিরপেক্ষতা। অর্থাৎ বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রে প্রত্যেক নাগরিকের নিজের বিশ্বাস অনুযায়ী আচরণের অধিকার রয়েছে; কিন্তু রাষ্ট্র নিজে কোনো ধর্মের প্রতি আনুকূল্য দেখাবে না। ধর্মনিরপেক্ষতার নীতি অনুযায়ী এক ধর্মের বা বিশ্বাসের লোক অন্য ধর্ম বা বিশ্বাসের লোকের আচরণে বাধা দেওয়ার অধিকার রাখে না। কেউ করার চেষ্টা করলে তাকে নিবৃত্ত করার অগ্রণী দায়িত্ব রাষ্ট্রের, সরকারের। কিন্তু

বিস্তারিত »

সিন্ডিকেটের খপ্পরে বিআরটিএ কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে এখনই

সম্পাদকীয়: নিয়ম অনুযায়ী আবেদনকারীর আবেদনপত্র যথাযথ পদ্ধতিতে যাচাই করে, পরীক্ষা নিয়ে, প্রয়োজনীয় শর্ত পূরণ হয়েছে কি না নিশ্চিত হয়ে তবেই গাড়ি চালনার সনদ অর্থাৎ ড্রাইভিং লাইসেন্স দেওয়ার কথা। কিন্তু বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) কার্যালয়ে এ নিয়ম মানার বালাই নেই। স্বাভাবিক পথ রুদ্ধ। আট থেকে ১২ হাজার টাকা ঘুষ না দিলে লাইসেন্স পাওয়া যায় না। সিন্ডিকেটের মাধ্যমে এ অনিয়ম ঘটছে।

বিস্তারিত »

ইয়াবা সংশ্লিষ্টদের আত্মসমপর্ণ মাদক নিমূর্লই হোক শেষ কথা

সম্পাদকীয়: মাদকের ভয়াবহতা নিয়ে এ যাবত কম আলোচনা হয়নি। পত্রপত্রিকায়ও মাদকের ভয়াল থাবা থেকে নিষ্কৃতির নানা উপায় নিয়েও আলোচনা করেছেন বিশ্লেষকরা। সরকারও যে এ ব্যাপারে অবগত নয়, তাও নয়। আমরা লক্ষ্য করেছি, মাদক নিমূের্ল সরকারের কঠোরতা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তৎপরতা এবং অভিযান। মাদক নিমূের্ল প্রশাসনের অভিযান দেশব্যাপী ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। আবার সমালোচনাও কম হয়নি। বিশেষ করে অভিযানে বিচারবহিভূর্ত হত্যাকা-ের বিষয়টি

বিস্তারিত »

নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ দক্ষ শ্রমশক্তি সৃষ্টি করতে ব্যবস্থা নিন

সম্পাদকীয়: যেকোনো দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন অনেকাংশেই নির্ভর করে সে দেশের মোট শ্রমশক্তির কর্মসংস্থানের ওপর। ‘কাক্সিক্ষত সামাজিক উন্নয়নের জন্য অন্তর্ভুক্তিমূলক প্রবৃদ্ধি : সমস্যা ও প্রাধান্য’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশ উপলক্ষে আয়োজিত সংলাপ অনুষ্ঠানে গত রবিবার সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ যে তথ্য তুলে ধরেছে, তা সুখকর নয়। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশে চাহিদা অনুযায়ী কর্মসংস্থান না হওয়ায় প্রতিবছর নতুন করে বেকার হচ্ছে আট লাখ

বিস্তারিত »

স্কুলশিশুদের রাস্তা পারাপার ট্রাফিক বিভাগকে সমন্বিত ব্যবস্থা নিতে হবে

সম্পাদকীয়: স্কুলে ঢোকার সময় নানা ঝক্কিতে পড়তে হয় শিশুশিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের। রিকশার জট, গাড়ির ভিড়, মোটরসাইকেলের বেতাল দৌড়, ফুটপাতে কর্মক্ষেত্র অভিমুখী মানুষের ব্যস্ততাÑএসবের মধ্যেই স্কুলে ঢুকতে হয় শিশুদের; রাস্তার এপার-ওপার হওয়ার বিষয়ও রয়েছে। অভিভাবকদেরও একই দশা হয়। রাজধানী ঢাকার বেশির ভাগ স্কুলের সামনেই এ অবস্থা দেখা দেয়। জেব্রাক্রসিং ও ফুট ওভারব্রিজ নেই; ক্লাস শুরু ও ছুটির সময় স্কুুলের সামনে কদাচিৎ

বিস্তারিত »

মিয়ানমারে গণহত্যা বিচারের উদ্যোগ দ্রুত এগিয়ে নিতে হবে

সম্পাদকীয়: জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা এবং গণমাধ্যমের তদন্ত ও অনুসন্ধানে মিয়ানমারে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে পরিচালিত গণহত্যা ও মানবতাবিরোধী অপরাধের যথেষ্ট তথ্য-প্রমাণ উঠে এসেছে। যুক্তরাষ্ট্র, কানাডাসহ বেশ কিছু দেশ গণহত্যার জন্য দায়ী সেনা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞাও জারি করেছে। জাতিসংঘের স্বাধীন সত্যানুসন্ধানী দলের প্রতিবেদন এবং পরে মানবাধিকার পরিষদের প্রস্তাবের ভিত্তিতে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ বিচারের প্রয়োজনে সেসব অপরাধের তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও

বিস্তারিত »

নদী রক্ষায় কঠোর অবস্থান সারা দেশে শুরু হোক একই প্রক্রিয়া

সম্পাদকীয়: নদীর অবৈধ দখল উচ্ছেদে আগেও অনেক অভিযান চালানো হয়েছে। কিছু স্থাপনা ভেঙেই অভিযান শেষ। ভাঙা স্থাপনার অবশিষ্টাংশও সরানো হয়নি। অভিযান শেষ হতেই অবৈধ দখলকারীরা আবার স্থাপনা তৈরি করেছে। এর ফলে সেসব অভিযানে কিছু অর্থের গচ্চা যাওয়া ছাড়া কাজের কাজ কিছুই হয়নি। এ অবস্থায় গত ২৯ জানুয়ারি থেকে বুড়িগঙ্গার তীরে উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে। চিহ্নিত করা ৯০৬টি অবৈধ স্থাপনার বেশির

বিস্তারিত »

এবার বৌদ্ধ অনুপ্রবেশ সীমান্ত কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করুন

সম্পাদকীয়: মিয়ানমারের সঙ্গে দীর্ঘ আলাপ-আলোচনার পর উভয় পক্ষ রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সম্মত হয়েছিল। সেই সমঝোতার পরিপ্রেক্ষিতে প্রায় আড়াই হাজার রোহিঙ্গার প্রথম দলটি মিয়ানমারে ফিরে যাওয়ার কথা ছিল গত নভেম্বরে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত একজনও ফিরে যেতে রাজি হয়নি। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ও বলেছে, মিয়ানমারে তাদের ফিরে যাওয়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। অন্যদিকে মিয়ানমার থেকে এখনো অনেক রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আসছে। তার ওপর ভারতে আশ্রয় নেওয়া

বিস্তারিত »

রোহিঙ্গা পরিস্থিতি প্রত্যাবাসনে চাপ বাড়াতে হবে

সম্পাদকীয়: মিয়ানমার সরকারের বৈরী মনোভাব এবং বিদ্রোহী দমনের নামে সেনাবাহিনীর জাঁতি নির্মূল অভিযানের কারণে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকে পরবর্তী কয়েক মাসে প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। মানবিক কারণে বাংলাদেশ তাদের আশ্রয় দিয়েছে। তারও আগে থেকে কয়েক লাখ রোহিঙ্গা কক্সবাজারের বিভিন্ন আশ্রয়শিবিরে রয়েছে। সব মিলিয়ে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা এ দেশে অবস্থান করছে। সামগ্রিক বিবেচনায় রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন

বিস্তারিত »
WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com