ডিএ: শরীয়তপুরের জাজিরায় উত্ত্যক্তের অভিযোগ করায় এক স্কুলছাত্রী ও তার বাবাকে পিটিয়ে পা ভেঙে দিয়েছে উত্ত্যক্তকারীরা। উপজেলার পালেরচর রাঢ়ি কান্দি গ্রামে গত বুধবার এ ঘটনা ঘটে। আহত ওই ছাত্রী ও তার বাবাকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জাজিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাহেলা রহমত উল্লাহ এ বিষয়টি জরুরী ভিত্তিতে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) পংকজ কুমার দেবনাথকে নির্দেশ দিয়েছেন। তবে জাজিরা থানার ওসি মো. এনামুল হক ঘটনাকে উত্ত্যক্তের জেরে না বলে দুই পক্ষের মারামারি বলে দাবি করছেন।
স্কুল ছাত্রীর মা বলেন, মেয়ে (১৪) বাড়ি থেকে স্কুলে যাওয়ার পথে প্রতিদিন ইমরান রাঢ়ি নামে এক ছেলে তাকে উত্ত্যক্ত করে। পথরোধ করে অশালীন প্রস্তাব দেয়। বাড়ি ফিরে মেয়ে ঘটনা জানালে ওই ছেলের বাবা-মাকে বিষয়টি জানিয়েও কোনো প্রতিকার হয়নি। গত বুধবার স্কুলে যাওয়ার পথে ইমরান তাকে অশ্লীল ভাষায় কটূক্তি করে। মেয়ে উত্তর না দেওয়ায় ইমরান তুলে নেওয়ার চেষ্টা করে। স্কুল থেকে বাড়ি ফিরে ঘটনা জানালে মেয়েকে নিয়ে জাজিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দাখিল করে তার বাবা।
তিনি বলেন, অভিযোগ দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ইমরান ও তার ভাই মোস্তফাসহ ৪/৫ বাবা-মেয়ের উপর হামলা চালায়। তারা রড দিয়ে পিটিয়ে মেয়ে ও তার বাবা পা ভেঙে দেয়। স্থানীয়রা এসে তাদেরকে উদ্ধার করে জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখান থেকে গতকাল বৃহস্পতিবার চিকিৎসকের পরামর্শে তাদেরকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওই ছাত্রীর মা। তবে ওসি এনামুল হক বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি হয়েছে। ঘটনা ভিন্ন খাতে নেওয়ার জন্য মেয়েকে উত্ত্যক্ত করার কথা বলা হচ্ছে।
উত্ত্যক্তের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাহেলা রহমত উল্লাহ বলেন, ঘটনার দিন আমি ঢাকায় সাক্ষী দিতে গিয়েছিলাম। এসে ঘটনা শোনার পর জাজিরা উপজেলা সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) বিষয়টি জরুরী ভিত্তিতে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে