ডিএ: পঞ্চগড়ে এক গৃহবধূকে মারধর শেষে মুখে কীটনাশক ঢেলে হত্যার অভিযোগে শ্বশুরবাড়ির তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। জেলার তেঁতুলিয়া থানার ওসি জহুরুল হক জানান, সোমবার সকালে পঞ্চগড় সদর হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। নিহত শেফালি আক্তার (২০) জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলার দর্জিপাড়া গ্রামের লিটন ইসলামের স্ত্রী। শেফালির বাবা সাইবুল ইসলাম অভিযোগ করেন, চার বছর আগে বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য প্রায়ই লিটন ও তার পরিবারের লোকজন শেফালিকে নির্যাতন করতেন। এ নিয়ে একাধিকবার শালিস বৈঠকও হয়েছে। রোববার পারিবারিক কলহের জেরে লিটন তাকে মারধর করেন। শেফালি অজ্ঞান হয়ে পড়লে লিটন ও তার পরিবারের সদস্যরা শেফালির মুখে কীটনাশক ঢেলে দিয়ে হাসপাতালে পাঠায়। শেফালির মা তসলিমা আক্তার বলেন, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জ্ঞান ফিরলে শেফালি বলেছে, মারধরের তার স্বামী ও শাশুড়ি মুখে বিষ ঢেলে দিয়েছে। লিটনের প্রতিবেশী সলেমান আলী বলেন, এর আগেও লিটন শেফালিকে বিভিন্নভাবে নির্যাতন করেছে। এ নিয়ে একাধিকবার বিচার-শালিসও হয়েছে। তার পরও লিটন ও তার পরিবারের নির্যাতন বন্ধ হয়নি। ওরা মেয়েটিকে বাঁচতেই দিল না। আমরা এলাকাবাসী লিটনসহ ওই পরিবারের সদস্যদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে জানিয়ে ওসি জহুরুল বলেন, এরই মধ্যে শেফালির শ্বশুর খাদেমুল ইসলাম, শাশুড়ি সালমা ওরফে ডালিমন ও ননদ খায়রুন আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে