শেষ হচ্ছে সস্তায় আইফোন ব্যাটারি পরিবর্তন

0
3

আইটি: কম মূল্যে আইফোনের ব্যাটারি পরিবর্তনের সুযোগ বন্ধ করছে অ্যাপল। ডিসেম্বরের শেষে এই অফার বাতিল করছে মার্কিন প্রযুক্তি জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানটি।
১ জানুয়ারি থেকে আবারও বাড়ানো হচ্ছে আইফোনের ব্যাটারি পরিবর্তনের মূল্য। বাড়ানো হলেও অফারের আগের চেয়ে কম থাকছে দাম– খবর ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড মিররের।
২০১৭ সালের শেষ দিকে অ্যাপল স্বীকার করে যে, পুরানো আইফোন যাতে হঠাৎ বন্ধ হয়ে না যায় সে কারণে ডিভাইসের গতি কমানো হয়ে থাকে। আইফোন ৬, আইফোন ৬এস এবং আইফোন ৬এস প্লাসে এই ফিচার আনা হয়। আইফোনের ব্যাটারি পুরানো হলেই এর গতি কমিয়ে দেওয়া হয়।
বিষয়টি স্বীকার করার পর অনেক গ্রাহক এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এ কারণে অ্যাপলের বিরুদ্ধে বেশ কিছু মামালাও করা হয়েছে। পরবর্তীতে কম মূল্যে আইফোনের ব্যাটারি পরিবর্তনের ঘোষণা দেয় মার্কিন প্রযুক্তি জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানটি।
ফোন বা ব্যাটারিচালিত সব ডিভাইসেরই সময়ের সঙ্গে ব্যাটারি সেল-এর কার্যক্ষমতা কমে যায়। নতুন অবস্থায় ব্যাটারিগুলো যে পরিমাণ চার্জ ধরে রাখতে পারে পুরানো হলে তা পারে না।
বিষয়টি সমাধা করতে আইফোনের গতি কমিয়ে দেয় অ্যাপল। ধীর গতির কারণ ব্যাখা করতে গিয়ে অ্যাপল জানায়, তাদের অ্যালগরিদম এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যাতে ব্যাটারিতে চার্জ কম থাকলেও ডিভাইসটি পুরোপুরি বন্ধ না হয়ে সন্তোষজনক কার্যক্ষমতা দিতে পারে।
এর ফলে কিছু গ্রাহক ধারণা করেন, তারা যাতে নতুন আইফোনে আপগ্রেড করেন সে কারণেই পুরানো আইফোনে ধীর গতি আনা হয়েছে।
রেডিট-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কয়েক বছর ব্যবহারের পর প্রসসরের ক্লক স্পিড কমিয়ে দেয় আইফোন। এটি অ্যাপল ইচ্ছাকৃতভাবেই করেছে বলে জানানো হয়।
পরবর্তীতে অ্যাপল স্বীকার করে যে, গ্রাহককে যথাযথভাবে সতর্ক না করেই আইফোনের গতি কমানো হয়েছে। একারণে গ্রাহকের কাছে ক্ষমাও চেয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।
চলতি বছরের জানুয়ারি মাসের শুরু থেকে ৭৯ মার্কিন ডলারের পরিবর্তে ২৯ ডলারে আইফোনের ব্যাটারি পরিবর্তন শুরু করে আসছিলো অ্যাপল।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে