পিরোজপুর প্রতিনিধিঃ পিরোজপুরের নাজিরপুরে ৫ম শ্রেণীর এক শিক্ষার্থী (১২) ধর্ষণের শিকার হয়ে ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর উপজেলার শ্রীরামকাঠী ইউনিয়নের দরিয়াবাদ গ্রামে। এ ঘনায় গতকাল রোববার রাতে ওই শিক্ষার্থীর মামা বাদী হয়ে একই এলাকার শুধাংশু হালদারের ছেলে সুদেব হালদারের বিরুদ্ধে নাজিরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। সোমবার (১ লা জুলাই ) সকালে নাজিরপুর থানার ওসি মো. মুনিরুল ইসলাম মুনির বিষয়টি নিশ্চিত করেন। অভিযুক্ত সুদেব হালদার উপজেলার খেজুরতলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র।
নাজিরপুর থানার ওসি মো. মুনিরুল ইসলাম মুনির জানান, ধর্ষণের শিকার ওই মেয়েটির বাবার বাড়ী উপজেলার মালিখালী ইউনিয়নের সাচিয়া গ্রামে। ছোট এক বোনকে নিয়ে তার মা-বাবা ভারতে বসবাস করায় মেয়েটি উপজেলার দরিয়াবাদ এলাকায় তার মামা বাড়ীতে বসবাস করে স্থানীয় একটি স্কুলে ৫ম শ্রেণীতে লেখা পড়া করে। একই গ্রামের শুধাংশু হালদারের ছেলে সুদেব হালদার গত সাত মাস ধরে ফুসলিয়ে ওই মেয়েটিকে ধর্ষণ করে আসছিলো। এতে মেয়েটি চার মাসের অন্তঃস্বত্তা হয়ে পড়ে। ঘটনাটি প্রকাশ করলে মেয়েটিকে হত্যা করে লাশগুম করা হবে বলে হুমকি দেয় ধর্ষক সুদেব হালদার।
মেয়েটি এ ঘটনা গোপন করলেও প্রতিবেশীদের চোখ আড়াল করতে পারেনি। প্রতিবেশী মহিলারা ওই কিশোরীর শারীরিক ও আচরণগত পরিবর্তন দেখতে পেয়ে তার নানীকে বিষয়টি অবগত করে। পরে মেয়েটি তার নানীর কাছে ঘটনা কথা প্রকাশ করে।
ওসি মো. মুনিরুল ইসলাম মুনির আরো জানান, ৫ম শ্রেনীর ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা রুজু করা হয়েছে। শিশুটির শারীরিক পরীক্ষার জন্য পিরোজপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে