ডিএ: রাজধানীর তিনটি সড়কে রিকশা চলাচল বন্ধে সিটি করপোরেশনের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন রিকশা শ্রমিকরা।
সোমবার সকাল ১০টার দিকে মুগদা, সায়েদাবাদ ও যাত্রাবাড়ীর প্রধান প্রধান সড়ক আটকে বিক্ষোভ করেন শ্রমিকরা। এ সময় তাঁরা বিভিন্ন স্লোগান দিয়ে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মিছিল করতে থাকেন।
কান্না জড়ানো গলায় এক রিকশাচালক বলেন, ‘আমগোর থাইকা সরকারের কাছে একটাই দাবি, যেভাবে রাস্তাটা আগে খোলা ছিল, সেইভাবে দিলে পরে আমরা সরকারের আর কোনো কিচ্ছু চাই না।’
‘আমরা শুধু খাইটে খাবার চাই। আমরা রোডের মধ্যে কোনো বন্ধ চাই না,’ দাবি জানান আরেক রিকশাচালক।
ক্ষোভের সঙ্গে অপর এক তরুণ রিকশাশ্রমিক বলেন, ‘আমাদের গাড়িটা যদি বন্ধ করে দেয়, তায় আমরা কীভাবে ঘর ভাড়া দেবো, কীভাবে স্কুলে পোলা-মাইয়া লেখাপড়া করাব? কীভাবে আমরা কী করব?’
পরে অবরোধ থেকে আগামীকাল মঙ্গলবার কুড়িল বিশ্বরোড থেকে যাত্রাবাড়ী পর্যন্ত সড়কে শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন কর্মসূচির ঘোষণা দেওয়া হয়।
রিকশা মোটর মালিক সমিতির সভাপতি হারুন অর রশিদ বলেন, ‘যদি রিকশা চলাচল করতে না দেয়, আগামীকাল সকাল ৯টা থেকে কুড়িল বিশ্বরোড থেকে মালিবাগ রেলগেট হইয়া খিলগাঁও, বিশ্বরোড থেকে মুগদা হইয়া সায়েদাবাদ পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে আজকের (সোমবার) মতো আমরা মানববন্ধন করব।’
এদিকে অবরোধের ফলে সংশ্লিষ্ট সড়কগুলোতে তীব্র যানজট সৃষ্টি হওয়ায় দুর্ভোগে পড়েন সাধারণ মানুষ। পরে রিকশা ও ভ্যান মালিক সমিতির হস্তক্ষেপে দুপুর ১টার দিকে শ্রমিকরা অবরোধ তুলে নিলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়ে আসে।
বিক্ষোভের ফলে সড়কগুলোতে পুলিশ সদস্যদের বাড়তি উপস্থিতি থাকলেও তাঁরা এ সময় অনেকটা নীরব ভূমিকায় ছিলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে