স্পোর্টস: ডেভিড মিলার ও ফাফ দু প্লেসির শতকে তিনশ’ ছাড়ানো স্কোর গড়া দক্ষিণ আফ্রিকা জিতেছে সহজেই। বড় পুঁজি পাওয়ার পর বোলারদের নৈপুণ্যে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে শ্রীলঙ্কাকে ১২১ রানে হারিয়েছে এবি ডি ভিলিয়ার্সের দল।
এই জয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল দক্ষিণ আফ্রিকা।
ডারবানের কিংসমেডে বুধবার টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেটে ৩০৭ রান করে দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাবে ৩৭ ওভার ৫ বলে ১৮৬ রানে অলআউট হয়ে যায় শ্রীলঙ্কা।
বড় লক্ষ্য তাড়ায় যে শুরু দরকার ছিল তা পায়নি শ্রীলঙ্কা। জ¦লে উঠতে পারেনি মিডলঅর্ডারও। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে আগেই ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে অতিথিরা। প্রথম নয় ব্যাটসম্যানের আটজনই দুই অঙ্কে যান কিন্তু কেউই পারেননি নিজের ইনিংস বড় করতে।
দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান নিরোশান ডিকভেলা ও উপুল থারাঙ্গাকে বিদায় করেন ওয়েইন পার্নেল। এরপর আর কক্ষপথে ফিরতে পারেনি দলটি। সর্বোচ্চ ৩৬ রান করা দিনেশ চান্দিমাল ফিরেন ক্রিস মরিসের বলে উইকেটরক্ষক কুইন্টন ডি কককে ক্যাচ দিয়ে।
তেমন কোনো জুটি গড়তে পারেনি লঙ্কানরা। উদ্বোধনী জুটির ৪৫ রানের পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৪ রানের জুটি গড়ে উঠে পঞ্চম উইকেটে চান্দিমাল ও আসেলা গুনারতেœর মধ্যে।
দক্ষিণ আফ্রিকার ইমরান তাহির, পার্নেল ও জেপি দুমিনি ২টি করে উইকেট নেন।
এর আগে শুরুটা ভালো হয়নি দক্ষিণ আফ্রিকার। দু প্লেসি ছাড়া স্বাগতিকদের প্রথম পাঁচ ব্যাটসম্যানের আর কেউ ভালো করতে পারেননি। ২০তম ওভারে ১০৮ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা।
মিলারের সঙ্গে ১১৭ রানের জুটিতে প্রতিরোধ গড়েন দু প্লেসি। নুয়ান কুলাসেকারার বলে কুসল মেন্ডিসকে ক্যাচ দিয়ে শেষ হয় তার ১০৫ রানের চমৎকার ইনিংসটি। সপ্তম শতক পাওয়া দক্ষিণ আফ্রিকার টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানের ১২০ বলের ইনিংসটি গড়া ৭টি চার ও একটি ছক্কায়। চাপে পড়া দলকে পথ দেখানো এই ইনিংসে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন তিনি।
দু প্লেসির বিদায়ের দলকে তিনশ’ ছাড়ানো সংগ্রহ এনে দেন মিলার। ২৭ বছর বয়সী বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান অপরাজিত থাকেন ১০৫ রানে। চতুর্থ শতক পাওয়া মিলারের ৯৮ বলের ইনিংসটি ৬টি ছক্কা ও ৩টি চারে সাজানো। মিলারের সঙ্গে ৬০ রানের জুটিতে মরিসের অবদান ২৬ রান। এই দুই জনের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে শেষ ৭ ওভারে ৭৮ রান সংগ্রহ করে স্বাগতিকরা।আগামী শনিবার জোহানেসবার্গে হবে তৃতীয় ওয়ানডে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
দক্ষিণ আফ্রিকা: ৫০ ওভারে ৩০৭/৬ (আমলা ১৫, ডি কক ১৭, দু প্লেসি ১০৫, ডি ভিলিয়ার্স ৩, দুমিনি ১১, মিলার ১১৭*, মরিস ২৬, পার্নেল ২*; কুলাসেকারা ১/৭৬, লাকমল ২/৫৪, ধনাঞ্জয়া ১/৪২, চতুরঙ্গা ০/২৩, সান্দাকান ১/৫১, পাথিরানা ১/১৯, গুনারতেœ ০/৩৭)
শ্রীলঙ্কা: ৩৭.৫ ওভারে ১৮৬ (ডিকভেলা ২৫, থারাঙ্গা ২৬, মেন্ডিস ২০, চান্দিমাল ৩৬, ধনাঞ্জয়া ১, গুনারতেœ ১৮, চতুরঙ্গা ১৪, পাথিরানা ২৬, কুলসেকারা ১২, লাকমল ২*, সান্দাকান ০; রাবাদা ১/৪৭, পার্নেল ২/৩৪, মরিস ১/২৭, তাহির ২/২৬, ফেহলুকয়ায়ো ১/২১, দুমিনি ২/৩০)
ফল: দক্ষিণ আফ্রিকা ১২১ রানে জয়ী
ম্যান অব দ্য ম্যাচ: ফাফ দু প্লেসি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে